/ / দাখিল পরীক্ষার মানবন্টন (নম্বর বন্টন) নির্দেশিকা ২০২১

দাখিল পরীক্ষার মানবন্টন (নম্বর বন্টন) নির্দেশিকা ২০২১

২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার মানবন্টন (নম্বর বন্টন), প্রশ্নপত্রের সময় ও বিষয়ভিত্তিক নম্বর বিভাজন নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড।

দাখিল পরীক্ষার নম্বর বন্টন (মানবন্টন), প্রশ্নপত্রের সময় ও বিষয়ভিত্তিক নম্বর বিভাজন নির্দেশিকা ২০২১

বাংলাদেশের মাদ্রাসা শিক্ষা  বোর্ড ২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক নম্বর বন্টন, প্রশ্নপত্রের সময় ও নম্বর বিভাজন নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে।

মাদ্রাসা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কামাল উদ্দিন স্বাক্ষরিত নির্দেশীকায় দাখিল পরীক্ষার মানবন্টনের বিষয়ের তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

দাখিলের প্রশ্নের নম্বর বিভাজন নির্দেশীকাটি বোর্ডের দাপ্তরিক ওয়েবসাইটে (www.bmeb.gov.bd), ১০ অক্টোবর ২০২১ খ্রি. তারিখে প্রকাশিত হয়।

প্রকাশিত দাখিলের নির্দেশীকায়, চলতি সালের অনুষ্ঠিত পরীক্ষার প্রতিটি বিষয়ের পৃথকভাবে প্রশ্নের সময় ও নম্বর বিভাজন করা হয়েছে।

এবছরের দাখিল পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে। করোনার কারণে কেবলমাত্র নৈর্বাচনিক বিষয়সমূহের পরীক্ষা নেওয়া হবে। আবশ্যিক ও ঐচ্ছিক বিষয়ের পরীক্ষা হবে না।

উল্লেখ্য, দাখিলের যেসব বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া হবে, সেসব বিষয়ের পূর্ণমান ও সময় কমিয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এখানে পরীক্ষার্থীদের মাঝে পরীক্ষার বিষয়ের পূর্ণমান ও সময় সম্পর্কে প্রশ্ন দেখা দিলে, বোর্ড প্রকাশিত নির্দেশীকায় এসব অস্পষ্টতা দূর করা হয়েছে।

এবারের পরীক্ষা বোর্ড প্রকাশিত পুনর্বিন্যাসকৃত সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের ভিত্তিতে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হবে। ইতোমধ্যে দাখিলে রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে। দাখিল পরীক্ষা রুটিন সংগ্রহ করতে নিচের প্রতিবেদন পড়ুন।

২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার সময় ও নম্বর বন্টন নির্দেশিকা

চলতি সালের দাখিল পরীক্ষার নিদের্শিকা MCQ/বহুনির্বাচনী ও CQ/রচনামূলক পরীক্ষার সময়ের ব্যপ্তি স্পষ্ট করা হয়েছে।

MCQ/বহুনির্বাচনী পরীক্ষা হবে ১৫ মিনিট, আর CQ/রচনামূলক পরীক্ষা ০১ ঘন্টা ১৫ মিনিট ব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে দাখিলে রুটিনে জানানো হয়েছে যে, বহুনির্বাচনী ও রচনামূলক পরীক্ষা একটানা অনুষ্ঠিত হবে, কোন বিরতি থাকবে না।

নিচের যুক্ত নির্দেশীকায়, প্রতিটি বিষয়ের মোট প্রশ্নের সংখ্যা ও কতটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে তা উল্লেখ করা হয়েছে। সাথে কত সময়ের মধ্যে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে তারও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

দাখিলের বিষয়ভিত্তিক পরীক্ষার সময় ও নম্বর বন্টন সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন নিচের যুক্ত বোর্ডের নির্দেশিকা থেকে।

২০২১ সালের দাখিল পরীক্ষার সময় ও নম্বর বন্টন নির্দেশিকা

দাখিল পরীক্ষার মানবন্টন সম্পর্কে জানার থাকলে, আমাদের লিখে জানাতে পারেন। লেখাটি অন্যকে জানাতে সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে সকলকে জানাতে পারেন।

লক্ষ্য করুন: এবারের পরীক্ষার বিষয়ের ফলাফলের সাথে চলতি এসাইনমেন্ট নম্বর যোগ করে, পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে বলে জানা গেছে। প্রকাশিত সাপ্তাহিক এসাইনমেন্ট সংগ্রহ করা যাবে নিচের প্রতিবেদন থেকে।

তথ্যসূত্র-

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড

Share This:

2 Comments

  1. গত ২০১৮সালের জে ডি সি পরিক্ষায় আমার জন্ম তারিখ ২০০৫সাল দেওয়া হয়েছে,, আমি জন্ম সালটা ২০০০ দিতে চাই,, এখন আমায় অনেক বয়স্ক মনে করে তারা।।।

    1. জন্ম সাল হবে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ অনুযায়ী। জন্ম নিবন্ধনে যে বয়স থাকবে আপনার জেডিসি সনদেও সে বয়স থাকার কথা। আগে দেখুন আপনার জন্ম সনদে কোন বয়স দেওয়া আছে। ধন্যবাদ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

17 + 17 =