প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ লিখিত পরীক্ষার সময়সূচি ২০২২

প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক নিয়োগ এর ২য় ধাপের লিখিত পরীক্ষা ২০ মে, ৩য় ধাপের নিয়োগ পরীক্ষা ৩ জুন 2022 খ্রি. তারিখে অনুষ্ঠিত হবে। তিন ধাপে অনুষ্ঠিত প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা জেলা পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এরই মধ্যে ১ম ধাপের প্রাথমিকের ২২ জেলার নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা ২২ এপ্রিল শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথম ধাপের লিখিত পরীক্ষার রেজাল্ট ১২ মে প্রকাশ করা হয়েছে।

সদ্য সংবাদ: দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের প্রাথমিক নিয়োগ পরীক্ষার নির্বাচিত জেলা ও উপজেলার তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। নিচের প্রতিবেদন থেকে ২য় ও ৩য় ধাপের পরীক্ষার সময়সূচি ও নির্ধারিত জেলা সমূহের তালিকা দেখুন।

লক্ষ্য করুন: ২য় ধাপের প্রাথমিকের নিয়োগ পরীক্ষার এডমিট কার্ড প্রকাশ করা হয়েছে। এডমিট কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম জানতে নিচের প্রতিবেদন পড়ুন।

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার এডমিট কার্ড ডাউনলোড ২০২২

দ্বিতীয় ধাপের প্রাথমিকের এডমিট কার্ড প্রকাশ, মানতে হবে ২৩ নির্দেশনা

2022 সালের প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক পদে নিয়োগ পরীক্ষার সময়সূচি

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের ১ম ধাপের পরীক্ষা ২২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১২ মে প্রথম ধাপের পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ করা হয়েছে।

দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা ২০ মে ২০২২ খ্রি. তারিখ শুক্রবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

সবশেষ ৩য় ধাপের প্রাথমিকের নিয়োগ পরীক্ষার ৩ জুন ২০২২ খ্রি. তারিখ শুক্রবারে একই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

২০ এপ্রিলের এক বিজ্ঞপ্তিতে, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার তারিখ ও নির্ধারিত জেলার তালিকা প্রকাশ করেছে তথ্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

নিচের বিজ্ঞপ্তিতে, প্রাথমিকের ২য় ও ৩য় ধাপের নিয়োগ পরীক্ষার সময়সূচি দেখুন।

প্রাথমিকের ২য় ও ৩য় ধাপের নিয়োগ পরীক্ষার সময়সূচি 2022

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা ২০ মে, তৃতীয় ধাপ ৩ জুন

সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ এর লিখিত পরীক্ষা তিন ধাপে আয়োজন করা হচ্ছে।

প্রয়োজনীয় পরীক্ষা কেন্দ্র না পাওয়ার কারণে তিন ধাপে প্রাথমিকের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানানো হয়েছে।

প্রথম ধাপের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা ২০ মে এবং তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা নেওয়া হবে ৩ জুন ২০২২ খ্রি. তারিখে।

কড়া নিরাপত্তার মধ্যে প্রাথমিকের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

১২ এপ্রিল আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে জানানো হয়, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রতিটি কেন্দ্রে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

পরীক্ষাকেন্দ্রের শৃঙ্খলা বজায় রাখা ও প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খল পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠান ও প্রশ্ন ফাঁস রোধে পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ও সাদা পোশাকধারী পুলিশ নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত থাকবে।

দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের নিয়োগ পরীক্ষার জেলা ও উপজেলা সমূহের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিবেদনের শুরু দিকের অনুচ্ছেদের লিংক থেকে এসব জেলার পরীক্ষার সময়সূচি জানা যাবে।

১ম ধাপে যেসব জেলা ও উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ  পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে

২২ এপ্রিল ২০২২ খ্রি. তারিখ সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত যে সব জেলা ও উপজেলার ১ম ধাপের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরপর ১২ মে এসব জেলার লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, মাগুরা, শেরপুর, গাজীপুর, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, মাদারীপুর, মুন্সিগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চট্টগ্রাম, মৌলভীবাজার, লালমনিরহাট জেলার সব উপজেলার লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া, বেলকুচি, চৌহালী, কামারখন্দ, কাজীপুর; যশোর জেলার ঝিকরগাছা, কেশবপুর, মনিরামপুর, শার্শা; ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা, ধোবাউড়া, ফুলবাড়িয়া, গফরগাঁও, গৌরীপুর, হালুয়াঘাট, ঈশ্বরগঞ্জ।

নেত্রকোনা জেলার আটপাড়া, বারহাট্টা, দুর্গাপুর, কমলকান্দা, কেন্দুয়া; কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম, বাজিতপুর, ভৈরব, হোসেনপুর, ইটনা, করিমগঞ্জ, কটিয়াদি; টাঙ্গাইল জেলার সদর, ভূয়াপুর, দেলদুয়ার, ধনবাড়ি, ঘাটাইল, গোপালপুর।

কুমিল্লা জেলার বরুয়া, ব্রাক্ষণপাড়া, বুড়িচং, চান্দিনা, চৌদ্দগ্রাম, সদর, মেঘনা, দাউদকান্দি এবং নোয়াখালী জেলার কবিরহাট, সদর, সেনবাগ, সোনাইমড়ি, সুবর্ণচর উপজেলার প্রার্থীদের পরীক্ষা ২২ এপ্রিল নেওয়া হয়।

নিচের বিজ্ঞপ্তি হতে ১ম পর্যায়ের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জেলা/উপজেলা তালিকা ও প্রার্থীর সংখ্যা সম্পর্কে জানুন।

১ম পর্যায়ের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জেলা/উপজেলার তালিকা ২০২২

এবারে ৪৫ হাজারের বেশী সহকারি শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য পরীক্ষা নেবে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। জুনে এসব শিক্ষকদের নিয়োগ প্রদান করা হবে।

এরই মধ্যে খাগড়াছড়ি জেলার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

০৮ এপ্রিল শুক্রবার বিকাল ২.৩০ মিনিটে প্রাথমিকের খাগড়াছড়ি জেলার লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষক পদে নিয়োগ পরীক্ষা এপ্রিল মাসে অনুষ্ঠিত হবে বলে নিশ্চিত করেছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী।

৯ মার্চ ২০২২ খ্রি. তারিখে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায়, প্রাথমিকের লিখিত পরীক্ষা এপ্রিলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

আরো জানুন:

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২: পদ সংখ্যা ২৬৮৯ জন

সমবায় অধিদপ্তর নিয়োগ ২০২২: COOP Job Circular 2022

এনটিআরসিএ গ্রন্থাগার শিক্ষক/প্রভাষক নিবন্ধন আবেদন

ঢাকার পাশাপাশি জেলা সদরেও প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে

২২ এপ্রিল ২০২২ খ্রি. তারিখে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নিয়োগের ১ম ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রার্থীর নিজ জেলা সদরে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের প্রাথমিক নিয়োগ পরীক্ষা প্রার্থীর নিজ জেলায় অনুষ্ঠিত হবে বলে নিশ্চিত খবর পাওয়া গেছে।

প্রাথমিকের পরীক্ষা নিয়ে ২৯ মার্চ অধিদপ্তর সারাদেশের জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের নিয়ে ভার্চুয়াল সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, কেন্দ্রীয়ভাবে পরীক্ষা নেয়া হবে না।

উল্লেখ্য, প্রাথমিকের সহকারি শিক্ষকের ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্যপদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২০ অক্টোবর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।

কিন্তু করোনা মহামারির বাস্তবতায় নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণ সম্ভব হয়নি। এদিকে অবসরজনিত কারণে নতুন করে আরও দশ হাজারেরও বেশি সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য হয়ে পড়েছে।

এমতাবস্থায় মন্ত্রণালয় পূর্বের বিজ্ঞপ্তির শূন্যপদ ও বিজ্ঞপ্তির পরের শূন্যপদ মিলিয়ে প্রায় ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

ধাপে ধাপে প্রাথমিকের এই নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোন বিজ্ঞপ্তি বা পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ করা হয়নি।

এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে, প্রাক্​–প্রাথমিকে ২৫,৬৩০ জন এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শূন্যপদে ৬,৯৪৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া অবসরজনিত কারণে শূন্য হওয়া ১০ হাজারেও বেশী পদ যুক্ত করা হবে এই নিয়োগের সাথে। তাঁতে পদ সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পাবে।

২০২০ সালের অক্টোবরে প্রাথমিকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। কিন্তু করোনার কারণে দীর্ঘ দিন লকডাউন থাকায় নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি।

তবে করোনা সংক্রমণ কমে আসায় ২২ এপ্রিল থেকে তিন ধাপে প্রাথমিকের নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

আরো পড়ুন:

প্রাথমিক ক্লাস রুটিন ২০২২ (১ম থেকে ৫ম শ্রেণির ডিপিই ক্লাস রুটিন)

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা ২০২২ (সরকারি-বেসরকারি)

Primary Teacher News Update: DPE Notice Office Order Gazette

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০২২ কবে হবে

২০২২ সালের প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের ১ম ধাপের লিখিত পরীক্ষা ২২ এপ্রিল ২০২২ খ্রি. তারিখ শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রথম ধাপের পর দ্বিতীয় ধাপ ২০ মে এবং তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩ জুন ২০২২ খ্রি. তারিখে।

এরই মধ্যে ৮ এপ্রিল খাগড়াছড়ি পাবর্ত্য জেলার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

টিচার নিউজ বিডি সার্বক্ষণিক পরীক্ষা অনুষ্ঠানের হালনাগাদ তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করছে।

কেন জেলার শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার সময়সূচি সংক্রান্ত কোন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হলে আমরা সাথে সাথে তার খবর দেব।

২০২২ সালে অনুষ্ঠিত প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার নতুন তথ্য পেলে এই প্রতিবেদনে তাৎক্ষনিক জানানো হবে।

তাই এই বিষয়ে আপডেট তথ্য পেতে প্রতিবেদনটিতে যুক্ত থাকুন।

আরো দেখুন:

আনসার নিয়োগ সার্কুলার ২০২২ (আনসার-ভিডিপি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি)

কমিউনিটি ক্লিনিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ (পদ সংখ্যা ৮০৮)

Primary and Mass Education Ministry Notice mopme.gov.bd

তথ্যসূত্র-

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়

সবশেষ আপডেট: ১৫/০৫/২০২২ খ্রি. তারিখ ৮:৩৮ অপরাহ্ন।

Share This:

29 Comments

    1. প্রতীমন্ত্রঅর তথ্যের পর সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্তাব্যাক্তি বলেছেন, ডিসেম্বরে পরীক্ষা সম্ভব নয়। আসলে এবিষয়ে এখনই কিছু নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ হলে বোঝা যাবে। ধন্যবাদ।

  1. সকল ক্ষেত্রে পরীক্ষা নেয়া হয় শুধু প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগ পরীক্ষা নেয়া হয় না।হাজার হাজার পদ খালি রেখে বিদ্যালয় চলছে।কেউ দেখার নেই।

  2. আমি বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে বিনীত অনুরোধ করতেছি যে,এবার যেন অসাধু কিছু কর্মকর্তার কারনে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রশ্ন ফাঁস করে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করা না হয়।

  3. পরীক্ষা গুলো নিজ নিজ জেলায় হওয়া উচিত কারন অনেক পরীক্ষাত্রী আছেন যাদের ৫০০০/ টাকা খরচ করে ঢাকায় পরীক্ষা দেওয়ার এ্যাবিলিটি নাই। অনেক এর কোন আত্মীয় স্বজন নেই ঢাকায় তাই আমার মতে যে কোন সরকারি চাকরি পরীক্ষা গুলো নিজ নিজ জেলায় হওয়া উচিত।

    1. মতামতের জন্য ধন্য। জেলা পর্যায়ে পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। অপেক্ষা করুন।

    1. এখানে যেসব জেলা/উপজেলার নাম আছে সে সবের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বাদবাকী জেলার পরীক্ষা পরবর্তী ধাপে অনুষ্ঠিত হবে।

  4. স্যার আমার প্রশ্ন__ ছিল নারায়ণগঞ্জ জেলায় 13 হাজার 577 জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে কতজনকে প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হবে।
    জানাবেন প্লিজ স্যার।

    1. এই বিষয়গুলো প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর জানান নি। মানে জেলা ও উপজেলার পদসংখ্যা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ ছিলো না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।